বন্ধুত্ব করতে চান তাহলে দেখুন আল্লাহর এবং রাসূল (সাঃ) এর
পথনির্দেশ
.বন্ধু কেমন হবে এ সম্পর্কে ইমাম গাযালী(র) বলেছেন,”যার
সাথে বন্ধুত্ব করবে তাঁর মধ্যে পাঁচটি গুন থাকা চাই।
.
১.বুদ্ধিমত্তা
২.সৎ স্বভাব,
৩.পাপাচারী না হওয়া,
৪.বিদআতী না হওয়া,
৫.দুনিয়াসক্ত না হওয়া।
.
প্রবাদে আছে,”নির্বোধ বন্ধুর চেয়ে বুদ্ধিমান শত্রুও ভালো”
.
আল্লাহ বলেন”যে আমার কাছে ফিরে আসে তার পথ অনুসরণ
কর।”
.
আল্লাহ তায়ালা আরও বলেন”হে ইমানদারগণ! তোমরা আল্লাহকে
ভয় কর এবং সত্যবাদীদের সঙ্গী হও।”
.
মহানবি (সাঃ) বলেন,”মানুষ তার বন্ধুর ধর্ম(আচরণ)দ্বারা প্রভাবিত।সুতরাং
কার সঙ্গে বন্ধুত্ব করছ তা যাচাই করে নিবে।”
.
রাসূল(সাঃ)আরও বলেছেন,”অসৎ সঙ্গীর চেয়ে একাকীত্ব
ভালো।আর একাকীত্বের চেয়ে সৎ সঙ্গী
ভালো।”অন্যত্র বলেছেন,”যে যেই জাতির অনুকরণ করে
সে ঐ জাতির মধ্যে গন্য হবে।”
.
সমাজে একটা কথা প্রচলিত আছে–“সৎ সঙ্গে স্বর্গবাস,অসৎ
সঙ্গে সর্বনাশ।”
.
সৎ মানুষ অসৎ মানুষের সাথে মিশলে ঐ সৎ মানুষের অসৎ হওয়ার
আশঙ্কা ৯৯% থাকে,অপর দিকে অসৎ মানুষ টার সৎ হওয়ার সম্ভবনা
মাত্র ১%।
.
তাই আসুন বন্ধুত্ব করার আগে ভেবে দেখি আসলেই আমি কি
তার বন্ধু হওয়া উপযুক্ত।